1. admin@www.bdccrimenews.com : admin :
  2. bdccrimenews@gmail.com : BDC Crime News : BDC Crime News
  3. khalid@www.bdccrimenews.com : Khaled Ahmed : Khaled Ahmed
পাঙ্গাস যখন রুই, কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চলছে রোগীদের খাবার নিয়ে সীমাহীন দূর্নীতি। - BDC Crime News
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় পুজা মন্ডবে মূর্তি ভাঙচুর জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন (জিসাস) বগুড়া নবগঠিত কমিটির নেতৃবৃন্দ ঘরোয়া আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মতলেবের ওপর অভিনব কয়দায় জান নেওয় হামলা ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর একটি জলন্ত সমস্যা আন্তর্জাতিক ভাবে এর সমাধান হওয়া উচিত, বললেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ এরদোগান। তারাগঞ্জে কার্গো নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রোড ডিভাইজারে পোরশায় খাদ্য মন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ নওগাঁর রাণীনগরে তাল বীজ রোপণের উদ্বোধন আজ পশ্চিম বাংলার বিধানসভার অধ্যক্ষের বাধ্যতামূলক ডাকে সাড়া দিলেন না, সি বি আই ও ইডির কর্মকর্তারা। পাঁচবিবি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি নারীর মৃত্যুর অভিযোগ চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ এর বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন।

পাঙ্গাস যখন রুই, কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চলছে রোগীদের খাবার নিয়ে সীমাহীন দূর্নীতি।

মো: মকবুল হোসেন (কুড়িগ্রাম জেলা বিশেষ ) প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : বুধবার, ১৮ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৪ Time View

পাঙ্গাস যখন রুই,
কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চলছে রোগীদের খাবার নিয়ে সীমাহীন দূর্নীতি।

মো: মকবুল হোসেন (কুড়িগ্রাম জেলা বিশেষ ) প্রতিনিধিঃ

প্রতিটি হাসপাতালে বৎসরে একবার সরকারি আদেশ মোতাবেক রোগীদের খাবার তালিকা নিয়ে বিভিন্ন ঠিকাদারের দরপত্রের মধ্য দিয়ে একজন গ্রহীতা চুড়ান্তভাবে নিশ্চিত হয়ে দায় দায়িত্ব সঠিকভাবে পরিচালনা করবেন বলে অঙ্গীকারবদ্ধ হন। প্রতিদিনের খাবার তালিকা সরকারি নিয়ম নীতি অনুযায়ী হাসপাতালের খাবার দেয়ার কথা থাকলেও তা দিচ্ছে না কুড়িগ্রাম জেলা সরকারি হাসপাতালে ঠিকাদার।
সকালের নাস্তা বাবদ প্রতিটি রোগীকে ৩০০ গ্রামের একটি করে রুটি পাওয়ার কথা থাকলেও পাচ্ছে ১৫০ গ্রাম,
চিনি ৭১ গ্রাম পাওয়ার কথা থাকলেও পাচ্ছে ৩০ গ্রাম। ১টি ভালো মানের কলা দেয়ার কথা থাকলেও দেয়া হচ্ছে সর্বনিম্ন মানের যা রোগীদের খাবার অনুপযোগী। এতে করে রোগীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে।
করোনা রোগীর ক্ষেত্রের প্রতিটি করোনা রোগীর দৈনিক ব্যয় ৩০০ টাকা। খাসির মাংস ও দেশি মুরগির মাংসের তালিকায় থাকলেও রোগীরা পাচ্ছে পাকিস্তানি মুরগির মাংস। হাসপাতালে রোগীদের খাসির মাংসের কথা জিজ্ঞাসা করলে তারা বলেন, একদিনও আমরা খাসির মাংস পাই না। বলা যায় দুই সপ্তাহ ধরে কোন রোগী হাসপাতালে ভর্তি থাকলে তারাও কখনও খাসির মাংস ও দেশি মুরগীর মাংস পান না বলে তাদের অভিযোগ করছে।
অপরদিকে, সাধারণ রোগীর মোট সংখ্যা ২০০ থেকে ২৫০ জন সব সময় ভর্তি থাকে বলে জানা যায়। সাধারণ রোগীর ক্ষেত্রে প্রতিদিনে জনপ্রতি ১২৫ টাকার খাবার তালিকা থাকলেও তাদের ৫০/৬০ টাকা মূল্যমানের খাবার দেয়া হয়। সাধারণ রোগীদের সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, খাসির মাংস আমরা কখনো হাসপাতালে চোখে দেখিনি। আবার পাকিস্তানি মুরগীর যে পরিমাণ মাংসের টুকরা দেয় এতে করে হাফ প্লেট ভাত খাইতে তা শেষ হয়ে যায়। দ্বিতীয়বার তরকারি নেওয়ার তো কোন সুযোগ নেই বলে তাদের অভিযোগ। তারা আরো জানান, রোগীদের রুই মাছ দেওয়ার কথা থাকলেও তারা দিচ্ছে পাঙ্গাস মাছ। রোগীরা বলেন, এই হাসপাতালের তো একজন উর্দ্ধতন কর্মকর্তা আছেন তিনিও এসব বিষয় নিয়ে তদারকী করেন না।
সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে সীমাহীন দূর্নীতি করে জনসাধারণকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এবং সরকারের চোঁখ ফাঁকি দিয়ে ঠিকাদার হাতিয়ে নিচ্ছেন মোটা অংকের টাকা।

Please Share This Post in Your Social Media

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

More News Of This Category

বিভাগসমূহ

Copyright © 2021 BDC Crime News
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )